হোয়াইট হাউস কার ? ট্রাম্পের জয় অনিশ্চিত 

বেতার বার্তা ডিজিটাল ডেস্কঃ  আমেরিকার নির্বাচনের পরে ঘুম কেড়েছে বিশ্ববাসীর ।  লড়াই জমে উঠেছে ,  রিপাবলিক পার্টি  ( ডোনাল্ড ট্রাম্প ) / বনাম /  ডোমোক্র্যাট পার্টি জো বিডেন  ।বৃহস্পতিবার গভীর রাত থেকে ইউএসের বেশ কয়েকটি টিভি নেটওয়ার্ক নির্বাচনের রাতের পর থেকে ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রথম প্রকাশ্য উপস্থিতির সরাসরি প্রচার বন্ধ করে দিয়েছে অভিযোগ প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি রাষ্ট্রবিরোধ ছড়াচ্ছে । দাম্ভিক ডোনাল্ড ট্রাম্পের জয়ের সম্ভাবনা ক্রমশ ক্ষীন হচ্ছে । পরাজয়ের গ্লানি সহ্য করতে পারবেন তো ডন ? এই প্রশ্নটাই এখন তাঁর খাস সমর্থকদের মনে ঘুরপাক খাচ্ছে । নেভাদা অঙ্গরাজ্যে জো বিডেনের নেতৃত্বে ডোমোক্র্যাট পার্টি ৬টি ইলেক্টরাল ভোট জিতে নিলেই হোয়াইট হাউসের মায়া ত্যাগ করতে হবে ডনকে। সপরিবারে ছেড়ে যেতে হবে সাদা বাড়িটি । এই কথা ভাবতে ভাবতেই ট্রাম্পের রাতের ঘুমটি চটকে গিয়েছে ।

কিছুতেই তাঁর এটা বিশ্বাস হচ্ছে না যে তিনি হারতে চলেছেন । তবে আশা এখনও জিইয়ে রয়েছে । জর্জিয়া ও নেভাদা অঙ্গরাজ্যে রিপাবলিকানরা জয় পেলে প্রেক্ষাপট বদলাতে সময় লাগবে না। তবে সেটি হলে তা হবে বড়সড় অঘটন। বিশ্লেষকরা ট্রাম্পের জয়ের সম্ভাবনা এদিন পুরোপুরি উড়িয়ে না দিলেও দিতে চাননি। তারা বলছেন– আর একটু অপেক্ষা করতে। তবে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মিডিয়া এরই মধ্যে জো বিডেনের জয়ের পূর্বাভাস করছে। এই পূর্বাভাস দেখে-শুনে একটু ঘাবড়ে গিয়েছেন ট্রাম্প। ক্ষমতা হাত ছাড়া হওয়ার ভয়ে ভোট ভন্ডুলের হুমকি দিয়েছিলেন তিনি। বলেছিলেন– প্রয়োজনে আইনি পথেও যাবেন ।

সেই মতোই– মিশিগান– পেনসিলভেনিয়া ও জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের ভোটকে চ্যালেঞ্জ করে আদালতে মামলা করেছেন ট্রাম্প। এর মধ্যে মিশিগানে আগেই বিজয়ী হয়েছেন বিডেন। মিশিগানের ১৬টি ইলেক্টরাল ভোট হাতছাড়া হওয়াতেই মাথায় রক্ত চেপেছে ডনের।

তিনি চাইছেন ওই অঙ্গরাজ্যের সমস্ত ভোট পুন­গণনা করা হোক। আর বাকি দুই রাজ্যের ভোট গণনা স্থগিত রাখার জন্যই মামলা করেছেন আদালতে । মিশিগান নিয়ে কি অভিযোগ রিপাবলিকানদের ? বলা হচ্ছে– ব্যালট যখন প্রসেস করা হচ্ছে – তখন সরকারি প্রতিনিধিদের অনেক গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় যেতে দেওয়া হয়নি ।

ট্রাম্প শিবির অভিযোগ করে বলেছেন – নির্ধারিত সময়ের পরেও পোস্টাল ব্যালট এসেছে । সেগুলো গোনা যাবে না। মিশিগানের সেক্রেটারি অফ স্টেট বেনসন জানিয়েছেন– একেবারেই বাজে অভিযোগ করেছে ট্রাম্প প্রশাসন। আর রাজ্যের আইন অনুযায়ী– নির্ধারিত সময়ের পরও পোস্টাল ব্যালট এলে তা গণনা করা যায় ।

ট্রাম্পের সমর্থকরাও দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ করেছেন। ট্রাম্পের আসন্ন হার তারা যেন বিশ্বাসই করতে পারছেন না। তবে যেকোনও বিক্ষোভ-প্রতিবাদ বা সংঘর্ষ কড়া হাতে দমন করছে নিরাপত্তাবাহিনী । ম্যানহ্যাটনে ৬০ জন মার্কিন নাগরিককে গ্রেফতার করা হয়েছে।

 

Comments