“বাংলাকে গুজরাতই তৈরি করব” দিলীপ ঘোষের  মন্তব্যের বিরুদ্ধে সোচ্চার বিকাশরঞ্জন , ফিরহাদ 

বেতার বার্তা নিউজ ডেস্কঃ কলকাতা  বিতর্কিত করে বরাবরই সমালোচনার মুখে পড়েছেন   রাজ্য বিজেপির  সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবার তিনি বারাসাতে ‘ চায়ে পে চর্চা কর্মসূচি ‘ যোগ দিতে গিয়ে বলেন “ বাংলাকে গুজরাতই তৈরি করব ” । তার এই বক্তব্যের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছেন শুভবুদ্ধি সম্পন্ন নাগরিকগণ । এবার বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন সিপিএমের রাজ্যসভার সাংসদ বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য।

দিলীপ ঘোষকে তীব্র কটাক্ষ ছুঁড়ে সোমবার নিজের ফেসবুক ওয়ালে বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য লেখেন, ‘বাংলাকে গুজরাত বানানোর কষ্ট না করে দিলীপ ঘোষ দলবল নিয়ে গুজরাত চলে গেলেই পারেন। ওই নেতা গুজরাত গেলে গো মূত্রে সোনা পাবেন। গো মাতার সেবা করতে হলে গুজরাত যাওয়াই ভাল।”

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এদিন রাজ্য সরকারকে তীব্র আক্রমণ করে দিলীপ ঘোষ বলেন, “দিদিমণি প্রায়ই বলেন, বিজেপি রাজ্যকে গুজরাত বানাতে চায়। আমি বলছি, হ্যাঁ আমরা বাংলাকে গুজরাতই করতে চাই। একশোবার আমরা বাংলাকে গুজরাত তৈরি করব। রাজ্যে কী উন্নয়ন হচ্ছে? আগে বাংলা থেকে IAS, IPS, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়র হত। এখন ক’জন IAS, IPS হচ্ছে? বাইরে থেকে তাঁদের আনতে হচ্ছে। আগে IAS, IPS, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়রদের পদবী থাকত চ্যাটার্জি, ব্যানার্জি, বসু বা অন্য কোনও বাঙালি পদবী। এখন তাঁদের পদবী অবাঙালি। বাংলা থেকে এখন পরিযায়ী শ্রমিক তৈরি হয়। তাঁরা গুজরাতে কাজ করতে যান।”

দিলীপের বাংলাকে ‘গুজরাত’ বানাতে প্রসঙ্গে রাজ্যের ফিরহাদ হাকিম অবশ্য পালটা আক্রমণে গিয়েছেন। তাঁর কথায়, ‘পশ্চিমবঙ্গকে আমরা গুজরাত করতে চাই না। গুজরাত হওয়া মানে এনকাউন্টারে খুন‌। ইসরাত জাহানের ঘটনা। গুজরাত মানে দাঙ্গায় ২০০০ মানুষের মৃত্যু। গুজরাতের শিল্প মানে আম্বানি-আদানি। ন্যানো কারখানাও বন্ধ হয়ে গেছে। দিলীপ ঘোষ গুজরাতে গিয়ে থাকুন। এখানে ছোট মাঝারি শিল্প রয়েছে। বিজেপি এমন দেশ চালাচ্ছে, যে জিডিপি বাংলাদেশের থেকে কমে গেছে। বিজেপি চলে গেলে পৃথিবীতে শান্তি আসবে।’

গুজরাট মডেল উল্লেখ করে বিজেপির প্রচার করলেও । বাস্তব গুজরাটের পরিসংখ্যান কিন্তু অন্য কথা বলে । উন্নয়নে নিরিখে গুজরাট বাংলার থেকে পিছিয়ে । গুজরাটের সাধারণ সাধারণ বলছে ধর্মীয় মেরুকরণ ছাড়া উন্নয়ন শুধু অলীক কল্পনা ।

Comments