হেফাজতের আন্দোলনরতদের ওপর হামলা এবং নিহত ৪, প্রতিবাদে বাংলাদেশ জুড়ে পালিত হল হরতাল 

বেতার বার্তা নিউজ ডেস্কঃ  ঢাকা, বাংলাদেশ হেফাজতে ইসলামের ডাকা সকাল-সন্ধ্যা হরতালের মধ্য দিয়ে ১৪ মাস পর আবারও হরতাল ফিরেছে দেশে। তবে এ হরতাল চলছে ঢিলেঢালাভাবে। সকাল ৯টায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কোথাও কোনো মিছিলের খবর পাওয়া যায়নি। এদিকে হরতাল প্রতিরোধ ও যেকোনো অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

চললো হরতাল, সতর্ক অবস্থানে পুলিশ সড়কেই ইটের স্তূপ দিয়ে দেয়াল ভাঙ্গা থানায় হামলা, আহত ৬ পুলিশ রোববার সকালে রাজধানীর মোহাম্মদপুর, ধানমন্ডি এলাকা ঘুরে দেখা যায়, হরতালের কারণে অন্যান্য দিনের তুলনায় রাস্তায় গণপরিবহন ও লোক সমাগম অনেকটাই কম। মোড়ে মোড়ে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে পুলিশ।

তবে ভোরের দিকে মোহাম্মদপুরের বসিলায় মাদ্রাসার ছাত্ররা মিছিল বের করে কিছুক্ষণ সড়ক অবরোধ করে রাখে। এ সময় তারা সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে অগ্নিসংযোগ করে যান চলাচলে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করে। পরে পুলিশ তাদের সরিয়ে দেয়।

কলাবাগান এলাকায় দায়িত্বরত সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার ইমতিয়াজ বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, আমরা সতর্ক অবস্থানে আছি। এখন পর্যন্ত এলাকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে। কোনো মিছিল মিটিং হয়নি।

প্রায় একই চিত্র পল্টন ও বায়তুল মোকাররম এলাকাতেও। সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস হিসেবে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। সেখানেও সতর্ক অবস্থানে রয়েছে পুলিশ।

এদিকে পুলিশের পাশাপাশি মাঠে দেখা গেছে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদেরকে। তারাও রাজধানীর বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে অবস্থান নিয়েছে।

এর আগে শনিবার সন্ধ্যায় পুলিশ সদর দপ্তর থেকে হরতাল সংক্রান্ত বিশেষ নির্দেশনা দেয়া হয় ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) ও পুলিশ সদর দপ্তরের পক্ষ থেকে।

এতে বলা হয়, মাঠ পর্যায়ে নিয়োজিত সদস্যদের কঠোর অবস্থানে থাকার নির্দেশনা দিয়েছে পুলিশ সদর দপ্তর। হরতালে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পুলিশ-র‍্যাবের পাশাপাশি মাঠে থাকবেন বিজিবি সদস্যরাও।

নির্দেশনায় চলমান আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশের ওপর হামলার আশঙ্কায় ডিএমপিসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় কর্মরত পুলিশ সদস্যদের সতর্ক অবস্থানে থাকতে বলা হয়।

র‌্যাব-পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বলছেন, জনগণের জানমালের নিরাপত্তায় প্রয়োজনে সর্বোচ্চ কঠোর হবেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। কাউকে হরতাল করতে দেয়া হবে না।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আগমনের প্রতিবাদে বায়তুল মোকাররম, হাটহাজারীসহ বাংলাদেশ জুড়ে হেফাজতের আন্দোলনরতদের ওপর হামলা ও ৪ জন নিহত হওয়ার প্রতিবাদে ২৮ মার্চ সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডাকে হেফাজত ইসলাম। একই ঘটনায় শনিবার (২৭ মার্চ) সারাদেশে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে সংগঠনটি। হেফাজতের হারতালে আনুষ্ঠানিকভাবে সমর্থন না দিলেও তা যৌক্তিক বলে দাবি করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

Comments